"সত্য ও ন্যায়ের পথে অবিচল"

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)

Comilla University Journalist Association (CoUJA)

আজ বৃহস্পতিবার  |  ১০ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ  |  বর্ষাকাল  |  ২৪শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

পাহাড়ের উচ্চতায় ও সমুদ্রের বিশালতায় আনন্দ ভ্রমনে সাংবাদিক সমিতি

কুবিসাস কর্তৃপক্ষ (০৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯)

প্রকৃতি যেখানে আপনার মনোজগতকে সুস্থ করে তোলে, আরেকটু সমৃদ্ধির টানে এগিয়ে নেয় সুদূর পথ, সেখানে প্রকৃতির টানে ছুটে চলা মানব হৃদয়ে নৈসর্গের বান এনে দেয়ার মত। মানব যন্ত্র নিরলস কাজের ফাঁকে পাড়ি দিতে চায় প্রকৃতির কাছাকাছি দেয়ালে, যেখানে আরেকবার কাজের জন্য স্পৃহা নিয়ে ফিরে আসতে পারে পুনরায় অথবা বিচিত্র জগতকে রঙিন করে তোলার প্রয়াসে। তবে পাড়ি দিতে হয় সমুদ্দুর প্রকৃতির খোঁজে মানব খাঁজের অবকাশে।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (কুবিসাস) গত ৯ ফেব্রুয়ারী আয়োজন করে আনন্দ ভ্রমন-২০১৯। সৌন্দর্যের অবয়ব চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড চন্দ্রনাথ পাহাড় ও গুলিয়াখালী বিচে এবারের ভ্রমণ উপভোগ করে সমিতির কর্মী থেকে শুরু করে সাংবাদিক নেতারা, সাবেক সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকবৃন্দ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়ার বডির সদস্য, শিক্ষক সমিতির প্রতিনিধি, কর্মকর্তা পরিষদের প্রতিনিধি, শাখা ছাত্রলীগের প্রতিনিধিসহ বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরা।

সীতাকুণ্ড অপরূপ প্রাকৃতিক সৌর্ন্দয্যের লীলাভূমি। এ এলাকা শুধু হিন্দুদের বড় তীর্থস্থানই নয় অনেক ভাল ভ্রমনের স্থানও বটে। সীতাকুণ্ডের পূর্বদিকে চন্দ্রনাথ পাহাড় আর পশ্চিমে সুবিশাল সমুদ্র।

সাংবাদিক সমিতির যাত্রা পথ ছিল সীতাকুণ্ড বা চন্দ্রনাথ পাহাড়। অপরুপ এই পাহাড়টি বাজার থেকে ৪কি.মি. পূর্বে অবস্থিত। চন্দ্রনাথ পাহাড়ে যাবার পথে হিন্দুদের কিছু ধর্মীয় স্থাপনা দেখা যায় যা অত্যন্ত দৃষ্টিনন্দনের সাথে সাথে ঐতিহ্যের প্রমাণ ধারন করে আছে। এখানে কিছু নৃতাত্বিক জনগোষ্ঠীর মানুষদের বসবাস করতে দেখা যায়, যারা ত্রিপুরা নামে পরিচিত এবং এখানে তাদের কিছু গ্রামও আছে। পাহাড়ে উঠার জন্য দুটি পথ দু ভাগে বিভক্ত হয়ে গেছে, ডানদিকের দিকের রাস্তা প্রায় পুরোটাই সিঁ‌ড়ি আর বামদিকের রাস্তাটি পুরোটাই পাহাড়ী পথ, কিছু ভাঙ্গা সিঁ‌ড়ি আছে। বাম দিকের পথ দিয়ে উঠা সহজ আর ডানদিকের সিঁ‌ড়ির পথ দিয়ে নামা সহজ। আমরা বামদিকে পথ ধরে উপরে উঠি। শেষ চূড়ায় গিয়ে পৃথিবীর এক অনন্য সৌন্দর্য সকলের অন্তরে আছড় কেটে যায়।

সীতাকুণ্ড শহরের পূর্বে অবস্থিত চন্দ্রনাথ শৃঙ্গ প্রায় ১০২০ফুট (প্রায়) অথবা (৩১০ মিটার) উঁচু এবং চট্টগ্রাম জেলার সর্বোচ্চ স্থান। আশপাশের বহুদূর বিস্তৃত পাহাড় আর জঙ্গলের অপূর্ব দৃশ্য কিছুক্ষণের জন্য হলেও ভুলিয়ে দেয় পরিশ্রম আর নিরাপদে নিচে ফিরে যাওয়ার ভাবনার কথা।

চন্দ্রনাথ দর্শন শেষ হলো পরবর্তী গন্তব্য গুলিয়াখালী বিচ। সেখানে গিয়ে সমুদ্র উপভোগ করে তারপর ফিরে এল পুনরায় সীতাকুন্ড বাজারে রেখে যাওয়া বাসে। তারপর পুনরায় বিশ্ববিদ্যালয়ের অভিমুখে।পথে বাসে কুইজের ব্যাবস্থা করা হয়, সেখানে বিজয়ীদের মাঝে আকর্ষনীয় পুরস্কার প্রদানের পালা।